Tips: ল্যাপটপ কেনার আগে, নজরে রাখুন ৫ টি বিষয়

দেশ জুড়ে চলছে করোনা আতঙ্ক। এখনো অনেকেই ঘরে বসেই করছে তাদের অফিসের কাজ। তাছাড়া যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এখন সবকিছুই হয়ে গেছে অনলাইন নির্ভর। তাই স্বচ্ছন্দে কাজ হোক বা বিনোদন একটি ভালো কোয়ালিটির ল্যাপটপ থাকা এখন অনেকেরই প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

আর এক্ষেত্রে মেনে চলতে পারেন কিছু ভালো টিপস

স্ক্রিন: আপনি যে ব্রান্ডেরই ল্যাপটপ কিনুন তার স্ক্রিন টা যেন একটু বড় আকারের হয়। কারণ বেশিরভাগ অফিসের কম্পিটার স্ক্রিন এখন অনেকটাই বড় তাই স্বছন্দ অনুভবের জন্য বড় স্ক্রিন নেওয়াটাই ভালো।এছাড়া দেখার সুবিধার্তে বড় স্ক্রিন যথেষ্ট ভালো।

র‍্যাম: চেষ্টা করুন যাতে আপনার ল্যাপটপে কমপক্ষে ৪ জিবি র‍্যাম থাকে। কারণ এক্ষেত্রে আপনি উইন্ডোজ ১০ ইন্স্টল্ করে অফিসিয়াল বিভিন্ন কাজ করতে পারবেন খুব অনায়াসেই। তবে আপনার যদি গ্রাফিক ডিজাইনিংয়ের মতো ভারী কাজ করার থাকে তাহলে আপনি নিতে পারেন ৮ জিবি র‍্যাম বিশিষ্ট ল্যাপটপ।

ব্যাটারি ব্যাকআপ:-সাধারণত নতুন ল্যাপটপ নেওয়ার পর ব্যাটারি ব্যাকআপ বেশিরভাগ ল্যাপটপ আড়াই ঘন্টা করেই দিয়ে থাকে। আর আপনি যদি ব্যাটারি ব্যাকআপ বেশি চান তাহলে স্ক্রিনের ব্রাইটনেস কমিয়ে নিতে পারেন।

মেমোরি: ল্যাপটপে যেন কমপক্ষে ৫০০ জিবি সতেজ থাকে। কারণ প্রতিদিনই বাড়ছে বিভিন্ন ডেটা ও ডকুমেন্টসের হার। তাই অফিসের যাবতীয় ডেটা ল্যাপটপে জমিয়ে রাখতে বা সংগ্রহ করে রাখতে কমপক্ষে ৫০০ জিবি স্টোরেজ বিশিষ্ট ল্যাপটপ কেনাই ভালো। প্রয়োজনে বাড়াতে পারেন আরো বেশি মেমোরি।

টাচপ্যাড-আপনার ল্যাপটপে টাচপ্যাড মডারেট কি না সেটা ভালো করে দেখে নিতে পারেন। কারণ কোনো ল্যাপটপের টাচপ্যাড সেনসিটিভ হয় আবার কোনো ল্যাপটপের টাচ প্যাড হয় হার্ড। এক্ষেত্রে মডারেট ল্যাপটপের টাচ পদে কাজ করে সুবিধা অনেকটাই।