YouTube-দেখার নেশায় কিশোর, মায়ের বকুনিতে করলো চমকে দেওয়া কাজ

বর্মন যুগে সবাই ব্যস্ত থাকেন যে যার নিজের মুঠোফোন নিয়ে, কেউ চ্যাট করতে, কেউ গেম খেলতে, কেউ বা ভিডিও দেখতে। কিন্তু এই ভিডিও দেখায় সর্বনাশের কারণ হল আনন্দ পল্লীর দাস পরিবারের কাছে।
সারাদিন ফোনে ইউটিউব দেখা নিয়ে বকুনি দেন বাবা-মা আর সে কারণেই চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে আত্মঘাতী হলেন এক দশম শ্রেণির ছাত্রী। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে রিজেন্ট পার্ক থানা এলাকার আনন্দ পল্লিতে। ওই ছাত্রীর নাম দোলন দাস। তার নাকি এই বছরই মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। ওই ছাত্রী মায়ের সঙ্গে ওই এলাকায় থাকত । আর বাবা কাজের জন্য গুজরাটে বসবাস করেন।তবে অবশ্য মাসখানিক পর পর বাড়িতে আসেন তিনি।
জানা যায়, সামনে পরীক্ষা হওয়ার সত্বেও সারাদিন ইউটিউব দেখছিল ওই মেয়েটি । আর তাতেই বকা দেয় তার মা। আর এই ইউটুব দেখার খবর ওই ছাত্রীর মা তার বাবার কাছেও দেয় । ছাত্রী দোলনকে ফোন করে বকা দেয় তাঁর বাবাও। এরপরেই ৮.৩০ নাগাদ নিজের পড়ার ঘরে চলে যায় ছাত্রী দোলন । পাখার সঙ্গে ওড়না দিয়ে ঝুলে পড়ে দোলন। সোমবার রাতে ঘটনাটি চোখে পড়তেই তাঁকে বাঙুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই দোলনকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়েছে।