স্ত্রীর বেশি আয় মেনে নিতে পারেন না পুরুষরা! কারণ……

স্বামীর আয় বেশি হলে স্ত্রী বেশ সুখেই থাকে এবং স্বামীকে বেশ ভালোও বাসে। কিন্তু স্ত্রীর যায় বেশি হলে স্বামীরা সেটা মেনে নিতে পারেন না। সম্প্রতি এমনটাই উঠে এসেছে লন্ডন থেকে চালানো এক গবেষণায়।
এশিয়া বা আফ্রিকার মতো পিছিয়ে পড়া মহাদেশের কোনো রাষ্ট্র নয়, খোদ আমেরিকার মতো প্রগতিশীল দেশেরই এই অবস্থা। লন্ডনের বাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে আমেরিকার প্রায় ৬ হাজার নারী–পুরুষের ওপর গবেষণা চালানো হয়েছিলো । আর এতে অবাক করা এতথ্য সামনে এসেছে। আর সেখানে বলা হয়েছে যে, যে পুরুষরা একা উপার্জন করেন, তাদের ওপর প্রবল ভাবে মানসিক চাপ থাকে। আবার যে পুরুষের নারী সঙ্গীরা পরিবারের সামগ্রিক উপার্জনের ৪০ শতাংশ উপার্জন করে আনেন, আর সেই পুরুষরা সবচেয়ে বেশি সুখী থাকেন।
কিন্তু যখন স্ত্রীর উপার্জনের টাকা ৪০শতাংস বেড়ে যায় তখন স্বামীরা মানসিক ভাবে ভেঙে পরে।আর এর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়, পুরুষতান্ত্রিক সমাজে সাধারণত আর্থিক স্বাধীনতা পুরুষরা নিজেদের হাতেই রাখতে এখনও পছন্দ করেন। এজন্যই নারীর আর্থিক স্বচ্ছলতা পুরুষ সঙ্গীর থেকে যদি বেশি হয়, তাহলে যেন অস্তিত্ব সংকটে পড়ার আশঙ্কায় থাকেন পুরুষটি।
তবে সব পুরুষকে এক করে দেখলে চলবে না। আমাদের দেশে কর্মজীবী নারীদের এগিয়ে যাওয়ার পথে পুরুষরাও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন অনেক ক্ষেত্রেই।