আপনার আনন্দ লাগবে এই ৬টি কাজ বাদ দিলেই জেনেনিন তার কারণ

জীবনটাকে সুন্দর করে তোলা শুধুমাত্র আপনার হাতেই রয়েছে। আপনি যা করছেন, যেভাবে জীবনযাপন করছেন তার প্রভাবই পড়ছে আপনার জীবনের ওপর। অর্থাৎ আপনার নিজেই কাজের কারণেই আপনি সুখী নন।
এমন কিছু কাজ রয়েছে যা থাকে বিরত থাকলে জীবনে আনন্দ আসবে।চলুন তবে বিস্তারিত জেনে নেই-
১।মোবাইল অফ করে শুয়ে পড়ুন
আজকাল প্রায় সকলেরই সার্বক্ষণিক সঙ্গী ‘স্মার্টফোন’৷ অনেকেরই এমন একটা ভাব, যেন ‘যন্ত্রটি’ বন্ধ করলেই সকলের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবেন তিনি! আসলে এতকিছু না ভেবে হাতের যন্ত্রটি বন্ধ করে দিন৷ দেখবেন, স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটের সাথে এই ‘সাময়িক বিচ্ছেদ’-এর ফলে আপনি মানসিকভাবে অনেকটা হালকা বোধ করছেন!
২।ভিন্ন ভিন্ন ধরণ
বিশেষ কিছু খাবার থেকে সাময়িকভাবে দূরে থাকা বা কিছু দিনের জন্য সে সব পরিত্যাগ করা নতুন নয়৷ সব ধর্মেই কিন্তু উপোস বা রোজা রাখার রীতি রয়েছে, তবে ভিন্ন ভিন্নভাবে৷ বিশেষজ্ঞরাও আজকাল স্বাস্থ্যগত কারণে মদ, ধূমপান, মিষ্টি, চর্বি বা অতিরিক্ত খাওয়া থেকে কিছু দিনের জন্য বিরত থাকার কথা বলেন৷ বলেন প্রচুর শাক-সবজি, ফল এবং কফির জায়গায় ‘হার্বাল টি’ বা চা পানের কথাও৷
৩।মাংস
খাবারের ব্যাপারে প্রতিটি মানুষেরই ব্যক্তিগত কিছু পছন্দ থাকে, যা থেকে তাঁরা দূরে থাকতে পারেন না৷ আসলে কিন্তু পছন্দের খাবারকে ‘না’ বলাই হলো সত্যিকারের উপোস বা ত্যাগ৷ হ্যাঁ, এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা৷
৪।কফি-ইন
সকালে কফির সুগন্ধে যাঁর ঘুম ভাঙে, তাঁর কি কফি না হলে চলে? অবশ্যই চলবে, তবে এর জন্য প্রয়োজন অসম্ভব মনের জোর৷ গরম কিছু চাই তো? বেশ তো, কফির বদলে চা পান করুন৷ পরপর দু-তিনদিন চা পান করলেই দেখবেন কফির আগ্রহ কমে যাবে৷ এ সব শুধু কথার কথা নয়…৷ তাই নিজেই পরীক্ষা করে দেখুন না!
৫।চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়ান
গাড়ি ছেড়ে খানিকটা হাঁটুন, পারলে সাইকেল চালান৷ এতে যেমন পরিবেশ রক্ষা হবে, তেমন রক্ষা করা হবে নিজের স্বাস্থ্যও৷ শুধু তাই-ই নয়, কিছুদিন করার পর হয়ত এর মধ্যে আনন্দও পেতে শুরু করবেন আপনি৷
৬।প্লাস্টিক থেকে দূরে থাকুন
উপোস বা রোজা রাখার পাশাপাশি নিজের পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন হন৷ মানে দূরে থাকুন প্লাস্টিকের ব্যবহার করা থেকে৷ অর্থাৎ উপোসের ক’টা দিন কেনা-কাটা করার সময় বা অন্যান্য কাজে সব ধরনের প্লাস্টিকের ব্যবহার পরিত্যাগ করুন৷ দেখবেন, কেমন অন্য ধরনের একটা অনুভূতি হচ্ছে।