ভুরি কমাতে নিয়মিত খাদ্যতালিকায় রাখবেন যেসব খাবার

সামান্য অনিয়মেই ওজনের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ে ভুঁড়ি। পেটের চর্বি কিন্তু শুধু যে চেহারার সৌন্দর্য কমায় তাই না, ডেকে আনে নানা অসুখ। ডায়েট, শরীরচর্চা এগুলো মেদ কমাতে আবশ্যিক। তবে শুধু এটুকুই নয়, সঙ্গে খাদ্যতালিকাতেও রাখতে হবে এমন সব খাবার, যাদের গুণে কমতে থাকবে ভুঁড়ি। পুষ্টিবিদদের মতে, মেদ কমাতে গেলে শুধু ব্যালান্স ডায়েট নয়, পাতে রাখতে হবে এমন কিছু সবজি, যা ক্যালোরি কাউন্ট কমায়, হজমে সাহায্য করে ও সার্বিক ভাবে মেদ ঝরায়। জেনে নিন তেমন কিছু খাবারের নাম:

মাশরুম: মাশরুম রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে। এ ছাড়া এই খাবার প্রোটিনে ঠাসা। শরীরের মেটাবলিজম বাড়িয়ে চর্বি জমা রোধ করতে পারে সহজেই।

শাক: বিভিন্ন শাক ও সবুজ পাতা পেটের মেদকে জব্দ করতে পারে দ্রুত। পুষ্টিবিদদের মতে, যে সব খাবারে পেটের চর্বি ও দেহের মেদ কমে, শাক তাদের মধ্যে অন্যতম। এর ক্যালোরি কাউন্টও খুব কম কিন্তু এই খাবার অনেকেরই হজমের সমস্যা করে, তাই হজমের অসুখ থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে পরিমাণ বুঝে শাক খান।

গাজর: কম ক্যালোরির খাবার ও মেদ কমাতে পারে এই দুই কারণেই মেদ ঠেকানোর খাবারে গাজর থাকবে প্রথম সারিতে। ফাইবারে ঠাসা গাজরের রস নিয়ম মেনে খেতে পারলে কমবেই ভুঁড়ি। ওজন ঝরিয়ে চেহারাকে উজ্জ্বল করতে পারে এই খাবার।

ব্রকোলি: এই সবজিতে যেমন অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের পরিমাণ প্রচুর, তেমনই এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। ফটোকেমিক্যালে ভর্তি এই সবজিতে বিভিন্ন খনিজ লবণ ও ভিটামিন থাকে। তাই ব্রকোলিতে ভরসা রেখে ঝরান মেদ।

শশা: এই ফলের বেশির ভাগটাই জল। গোটাটাই ফাইবার আর জলে ভর্তি। তাই ডিটক্সিফিকেশন তো হয়ই, সঙ্গে ফাইবারের আধিক্যে খিদেও কমায়। শরীরের মেদ কমাতে তাই মেনুতে রোজ রাখুন শশা। টক দইয়ের সঙ্গত পেলে এই ফল আরও ভাল কাজ করে।